Skip to main content

কিভাবে এন্ড্রোয়েড স্মার্টফোনে PIP চালু করবেন

 বর্তমানে ইউটিউব হচ্ছে বিশ্বব্যাপী জনবহুল ও জনপ্রিয় একটি ভিডিও শেয়ারিং ভার্চুয়াল সাইট। এই ভার্চুয়াল সাইটটি প্রতিনিয়ত মানুষের নিকট জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। 


বর্তমানে ইউটিউবের একটি প্রসিদ্ধ ও চমকপ্রদ ফিচার হচ্ছে Youtube PiP Mode Feature। যদি আপনি আপনার স্মার্টফোনে ইউটিউব সাইটে এই প্রসিদ্ধ Youtube PiP Mode Feature ব্যবহার করতে চান, তাহলে আজকের আর্টিকেল আপনার জন্য। আজকের আর্টিকেলে আমরা আপনাকে Youtube PiP Mode Feature ব্যবহার সম্পর্কে জানাবো।

Youtube PiP Mode Feature কী?

বর্তমানে ইউটিউবের সমস্ত ফিচারগুলো থেকে জনপ্রিয় ফিচার হচ্ছে Youtube PiP Mode Feature। আমরা অনেকেই জানি না যে আসলে Youtube PiP Mode Feature কী ও তা কেনো ব্যবহার করা হয়?

আসলে PiP এর ফূল অর্থ হচ্ছে, Picture in Picture। অর্থাৎ, আপনি সহজেই আপনার ভিডিও পিকচার মুডে দেখতে পাবেন। তাছাড়া এই Youtube PiP Mode Feature আমরা অনেকেই পছন্দ করে থাকি।

কিন্তু, হতাশা করার মত সংবাদ হলো যে, ইউটিউবে আপনি এই ফিচারটি ব্যবহার করার জন্য অবশ্যই আপনাকে ইউটিউব Red এর মেম্বার্স হতে হবে। যেহেতু আমরা সকলেই ফ্রি ইউটিউব চালিয়ে থাকি, তাই আমাদের এই ক্ষেত্রে এই Youtube PiP Mode Feature ব্যবহার করা সম্ভব হয়ে উঠে না। 

কিন্তু, আজকের আর্টিকেলে আমরা আপনাকে জানাবো কিভাবে আপনি সহজেই কোন রকম প্রিমিয়াম মেম্বার হওয়া ব্যতীত Youtube PiP Mode Feature আপনার স্মার্টফোনে ব্যবহার করবেন।

Youtube PiP Mode Feature ব্যবহার পদ্ধতি

যদিও Youtube PiP Mode Feature ব্যবহার পদ্ধতি একটি কঠিন ও ভিন্ন। তবুও, আমরা আজকের আর্টিকেলে সবকিছু সবিস্তারে আলোচনা করবো।

  • Youtube PiP Mode Feature ব্যবহারের জন্য সর্বপ্রথম আপনার স্মার্টফোনে Custom Navigation Bar app ডাউনলোড করে ইনস্টল করে নিন। 
  • তারপর আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপে ADB Drivers ইনস্টল করে নিন। সেক্ষেত্রে আপনি  Minimal ADB & Fastboot বা official Google binaries চুজ করতে পারেন।
  • তারপর আপনার স্মার্টফোনে USB Debugging চালু করে দিন। চালু করার জন্য Setting > Developer Option > USB Debugging থেকে অপশনটি চালু করে দিন।
  • তারপর আপনার স্মার্টফোনটি আপনার কম্পিউটারের সাথে USB ক্যাবলের সঙ্গে যুক্ত করুন। তারপর আপনার উইন্ডোজ সার্চ বক্স থেকে Command Prompt লিখে সার্চ করুন এবং তাতে প্রবেশ করুন। অথবা আপনার কিবোর্ড থেকে Win+X+C টাইপ করে তাতে প্রবেশ করুন। তারপর সেখানে adb devices কমান্ডটি লিখুন। যদি আপনার স্মার্টফোনে কোনকিছুর পারমিশন চায়, তাহলে তা Allow করে দিন।
  • তারপর আপনার স্মার্টফোনে Custom Navigation Bar app চালু করুন। প্রথম পেজে Get Started অপশনে টাচ করুন। তখন আপনাকে একটি নির্দিষ্ট পারমিশন দিতে হবে। আর তার জন্য আপনার কম্পিউটারের Command Prompt পেজে নিম্মোক্ত কমান্ডটি টাইপ করে দিন।
adb shell
pm grant xyz.paphonb.systemuituner android.permission.WRITE_SECURE_SETTINGS

  • অতঃপর আপনার কাজটি সঠিকভাবে হয়ে থাকলে আপনার স্মার্টফোনের এপসের রঙটি হলুদ থেকে সবুজে রুপান্তরিত হবে। আর তখনি আপনি বুজবেন যে আপনি সঠিকভাবে সবকিছু করছেন। উক্ত এপসের পরবর্তী পেজে যাওয়ার জন্য একটি Arrow বাটন পাবেন। তাতে টাচ করুন।
  • পরবর্তী পেজে আপনি Safety First টাইটেলে একটি পেজ পাবেন। সেখানে Start বাটনে ক্লিক করুন।
  • পরবর্তী পেজে যদি এই এপসটি আপনার ডিভাইসের সঙ্গে উপযুক্ত হয়, তাহলে সবার নিচে একটি Arrow বাটন দেখতে পাবেন। নতুবা, যদি আপনি Arrow বাটন দেখতে না পান, তাহলে বুজতে হবে এই এপসটি আপনার স্মার্টফোনের জন্য উপযুক্ত নয়।
  • যদি আপনি Arrow বাটন দেখতে পান, তাহলে তাতে টাচ করে এপসে প্রবেশ করুন এবং সেখান হতে Navigation Bar সিলেক্ট করুন।
  • তারপর Navigation Bar পেজে প্রবেশের পর সেখানে Type নামে দু'টি অপশন পাবেন। দু'টি অপশনে প্রবেশ করুন এবং Keycode সিলেক্ট করুন।
  • তারপর আপনি Navigation Bar পেজেই Keycode নামে অপশন পাবেন, তাতে প্রবেশ করুন এবং Window সিলেক্ট করুন।
  • তারপর আপনি আপনার স্মার্টফোনের Navigation বারে একটি আলাদা আইকন দেখতে পাবেন। 
  • তারপর আপনি আপনার স্মার্টফোন থেকে ইউটিউবে প্রবেশ করুন এবং যেকোন একটি ভিডিও চালু করুন।
  • তারপর আপনার মোবাইলের Navigation বার থেকে উক্ত আইকনে টাচ করুন। তাহলেই সেই ভিডিওটি একটি Floating Window হয়ে ব্যাকগ্রাউন্ডে চালু হবে। 

এইভাবে আপনি সহজেই আপনার স্মার্টফোনে Youtube PiP Mode Feature ব্যবহার করতে পারবেন। Youtube PiP Mode Feature নিয়ে লেখা আমাদের আজকের আর্টিকেলটি আপনাদের কেমন লেগেছে, তা কমেন্ট করে জানাতে পারেন। Youtube PiP Mode Feature ব্যবহার নিয়ে আপনার কোন ট্রিকস জানা থাকলে তা আমাদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারেন। 










Comments

Popular posts from this blog

কিভাবে এন্ড্রোয়েড স্মার্টফোনে নটিফিকেশন লুকাবেন

  বর্তমান সময়ে এন্ড্রোয়েড স্মার্টফোন আমাদের সকলের জন্য একটি প্রয়োজনীয় বস্তু হয়ে দাড়িয়েছে। আমাদের সার্বিকক যোগাযোগের জন্য সর্বপ্রথম আমরা এই এন্ড্রোয়েড স্মার্টফোনকে বেছে নিই। আমরা প্রতিনিয়ত আমাদের সকল কাজের জন্য এন্ড্রোয়েড স্মার্টফোনকে প্রাথমিক যোগাযোগ মাধ্যম হিসেবে বেছে নিয়েছি।  Google প্রায়ই কিছুদিন পর পর এন্ড্রোয়েড অপারেটিং সিস্টেমে নতুন কিছু আপডেট নিয়ে আসে। Google এবার Android Oreo ভার্সনে ইউজারদের জন্য নতুন একটি আপডেট এনেছে আর তা হলো, Android Background Notification নামে একটি ফিচার। এই Android Background Notification ফিচারটির মাধ্যমে আপনি আপনার Android Oreo ভার্সনে আপনার ব্যাকগ্রাউন্ডে রানিং থাকা সমস্ত এপস সম্পর্কে নোটিফিকেশন পাবেন এবং কোন কোন এপস আপনার ব্যাটারির ক্ষতি করছে, তা সম্পর্কে জানতে পারবেন। কিন্তু, এই Android Background Notification ফিচারটি ইউজারদের জন্য উপকারী হলেও, অনেক ইউজার এই Android Background Notification ফিচারটি ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে না। কেননা, একটু পর পর নোটিফিকেশন আসতে থাকা সকলের জন্যই বিরক্তির কারণ হয়ে দাড়ায়।  সুতরাং, যদি আপনি Android Oreo ভার্সনের এন

কিভাবে এন্ড্রোয়েড ফোনে একাধিক একাউন্ট করবেন

  আমাদের প্রাত্যাহিক জীবনে একটি এন্ড্রোয়েড স্মার্টফোন কতটুকু জরুরী, তা ভাষায় বুজিয়ে বলার আক্ষেপ রাখে না। একটি এন্ড্রোয়েড স্মার্টফোন আমাদের জীবনের সকল কাজ খুব সহজেই সমাধান করে দেয়। আমরা সকলেই আজকাল নিজেদের সার্বিক প্রয়োজনে এই এন্ড্রোয়েড স্মার্টফোন ব্যবহার করে থাকি।  বর্তমানে এন্ড্রোয়েড স্মার্টফোনের একটি বিশেষ ফিচার হলো, Android Multiple User Account Feature। আমরা আমাদের নিজস্ব ব্যবহার করা এন্ড্রোয়েড স্মার্টফোন বিভিন্ন প্রয়োজনে অন্যদের সঙ্গে শেয়ার করে থাকি। এক্ষেত্রে অবশ্যই আমরা আমাদের স্মার্টফোনের ব্যপারে তেমন একটি সিকিউরিটি নিশ্চিত করতে পারি না।  তাই, Google ইউজারদের সিকিউরিটি নিশ্চিত করতে এবার নিয়ে এলো Android Multiple User Account Feature নামে একটি ফিচার। এই Android Multiple User Account Feature ব্যবহারের মাধ্যমে আপনি সহজেই আপনার স্মার্টফোনে ইউজার একাউন্ট পরিবর্তন করে আপনার স্মার্টফোনটি অন্যদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারবেন। এতে অন্যান্য কেউ আপনার পার্সোনাল ইনফরমেশনে সহজেই এক্সেস নিতে পারবে না এবং আপনাকে আপনার সিকিউরিটি নিয়ে চিন্তিত হতে হবে না। কিভাবে Android Multiple User Account Feature

উইন্ডোজ ১০ অটোমেটিক আপডেট বন্ধ করার উপায়

  উইন্ডোজ ১০ বর্তমান সময়ে বহুল ব্যবহৃত একটি গ্রাফিক্যাল অপারেটিং সিস্টেম। এই উইন্ডোজ ১০  অপারেটিং সিস্টেমটি মাইক্রোসফট কোম্পানির অন্যান্য অপারেটিং সিস্টেমের তুলনায় বহুল ব্যবহৃত হয়েছে এবং বহুল প্রসিদ্ধও বটে। আমরা যারা নতুন কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ক্রয় করি, আমরা সকলেই মূলত এই উইন্ডোজ ১০ এর বিভিন্ন ভার্সন ব্যবহারের মাধ্যমে কম্পিউটার ব্যবহার শুরু করে থাকি। উইন্ডোজ ১০ এর অন্যান্য জনপ্রিয় ফিচারগুলো থেকে একটি ফিচার হচ্ছে, উইন্ডোজ ১০ অটোমেটিক আপডেট হওয়া। এই ফিচারটির মাধ্যমে মাইক্রোসফট থেকে রিলিজ করা সমস্ত আপডেট ইন্টারনেট কানেকশনের মাধ্যমে প্রতিটি কম্পিউটারে অটোমেটিক আপডেট হয়ে থাকে।  যদিও এই ফিচারটি বহুল জনপ্রিয়, কিন্তু অনেকের নিকট এই ফিচারটি একটি বিরক্তিকর কারন হয়ে উঠে। কিন্তু, উইন্ডোজ ১০ ভার্সনে উইন্ডোজ অটোমেটিক আপডেট হওয়ার বিষয়টি আপনার নিয়ন্ত্রণে নয়। কেননা, কোন সাধারণ মানুষ এই অটোমেটিক আপডেট ফিচারটি বন্ধ করতে পারেনা। সুতরাং, আপনি যদি আপনার ব্যবহার করা কম্পিউটারে উইন্ডোজ ১০ অটোমেটিক আপডেট বন্ধ করার উপায় জানতে চান, তাহলে আজকের আর্টিকেল আপনার জন্য। আজকের আর্টিকেলে আমরা আপনাকে উইন্ডোজ ১০ অটোমেটিক আ